1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
গোপালগঞ্জে বশেমুরবিপ্রবিতে নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মিছিল দুর্নীতি দমনে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গোপালগঞ্জে হেলমেট বিহীন চালকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থার নির্দেশ- জেলা প্রশাসক গোপালগঞ্জে কোটা বিরোধীদের শ্লোগানের প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটন এর বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলায় বিএমইউজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ আদমদীঘিতে পোনা মাছ বাজরের দুরাবস্থা ; প্রায় এক হাজার ব্যবসায়ী বেকার গোপালগঞ্জে টুঙ্গিপাড়ায় চাঁদা আদায় করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক -০১ নড়াগাতীতে সড়কের সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ!স’মিল থেকে উদ্ধার স্থানীয় সাংসদের হস্তক্ষেপ কামনা তানোরে বিচারের বাণী নিভৃতে কাঁদছে নাদিয়া বোর্ডের নির্বাহী সভা বৃহস্পতিবার

বগুড়ায় মধ্যরাতে গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলে ধর্ষণের পর হত্যা চেষ্টা

  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৮৬ ০৫ বার পঠিত

মিরু হাসান, বগুড়া সংবাদদাতা -ঃ- বগুড়ার শেরপুরে মধ্যরাতে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের পর হত্যাচেষ্টা চালিয়েছে সংঘবদ্ধ দুর্বৃত্তরা। গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই গৃহবধূর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন।

উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের দক্ষিণ জামুর গ্রামের ফসলি মাঠে এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশের কাছে দেওয়া নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূর বর্ণনা থেকে জানা যায়, উপজেলার দক্ষিণ জামুর গ্রামের বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন ওই গৃহবধূ। ঘটনার রাতে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাড়ির প্রধান ফটক খুলে বের হন। এ সময় ওঁৎ পেতে থাকা চার থেকে পাঁচজন তার মুখে গামছা বেঁধে তুলে নিয়ে যান। গ্রামের ফসলি মাঠের মধ্যে নিয়ে গিয়ে এক ব্যক্তি তাকে ধর্ষণ করেন এবং অন্যরা পাহারায় নিয়োজিত ছিলেন। এক পর্যায়ে ধর্ষণকারীকে চিনতে পারেন তিনি। তার নাম আব্দুল মান্নান (৪০)। তিনি একই গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে। আর এই চিনে ফেলার কারণেই তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন তারা।

এরই ধারাবাহিকতায় মান্নান ও তার সহযোগীরা ওই গৃহবধূর মাথায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করেন। এতে তার মাথা ফেটে যায়। পরে মৃত ভেবে তাকে ফেলে রেখে চলে যান।

পরবর্তীতে পরিবারের লোকজন ঘর থেকে বের হয়ে তার শয়নকক্ষ ও বাড়ির দরজা খোলা দেখে ডাকাডাকি করেন। কিন্তু কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। একপর্যায়ে গ্রামের ফাঁকা মাঠ থেকে গোঙ্গানির শব্দ ভেসে আসে। এ

রপর রক্তাক্ত ও আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে তাৎক্ষণিক তাকে বগুড়ায় শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় বলে পুলিশের একটি দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দায়িত্বরত চিকিৎসক গুলশানারা বলেন, ওই গৃহবধূকে পাশবিক নির্যাতন চালানোর পর মাথায় আঘাত করা হয়। এতে মাথা ফেটে গেছে এবং প্রচণ্ড রক্তক্ষরণ হয়েছে। তার অবস্থা খুবই ক্রিটিকাল। তাই প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর তাকে বগুড়ায় শজিমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত আব্দুল মান্নান পালাতক থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জানতে চাইলে শেরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান খোন্দকার বলেন, ঘটনাটি নিয়ে এরইমধ্যে তদন্ত শুরু করা হয়েছে। তাই ঘটনাটি সম্পর্কে এই মুহূর্তে কিছু বলা সম্ভব হচ্ছে না। তবে ওই ঘটনায় যারাই জড়িত থাক না কেন, তাদের চিহিৃত করে আইনের আওতায় আনা হবে। এজন্য পুলিশি অভিযান চলছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যেই তাদেরকে ধরা সম্ভব হবে। পাশাপাশি এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান তিনি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ