1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৭:৪৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
নিখোঁজ হওয়ার ৮ দিন পর মিলল এমপি আনোয়ারুল আজিম আনারের মরদেহ গোপালগঞ্জে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষ গোপালগঞ্জে আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল দুই জনের-আহত ০২ গোপালগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই কলেজ শিক্ষকসহ প্রাণ হারালো ৪জন শ্রীবরদীতে মোটরসাইকেল ও অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই যুবক নিহত, আহত ১ নো হেলমেট নো ফুয়েল সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে ট্রাফিক পুলিশের অভিযান গলাচিপায় ক্রয়কৃত সম্পত্তিতে প্রভাবশালীদের বাঁধা, দ্বারে দ্বারে ঘুরছে জমির মালিক, রাজশাহীতে ২০ বোতল ফেন্সিডিল ও ২০০ পিছ ইয়াবাসহ গ্রেফতার ১ জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন সাবেক এমপিকে গোপালগঞ্জের রূপালী ব্যাংকে  গ্রাহক হয়রানি

রাজধানীতে বাসা থেকে বাবা ও ছেলের মরদেহ উদ্ধার, নিহত ব্যক্তির মেয়েকে মুমূর্ষ উদ্ধার

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১২০ ০৫ বার পঠিত

ডেক্স রিপোর্টঃ রাজধানীতে শেরে বাংলা নগর থানার তালতলা মোল্লাপাড়ায় একটি বাসা থেকে বাবা ও ছেলের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আর নিহত ব্যক্তির মেয়েকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে স্থানীয় বাসিন্দা মরদেহ দুটি উদ্ধার করে শেরে বাংলা নগর থানা পুলিশ।

নিহতরা হলেন মো. মশিউর রহমান ও তার ছেলে সাদাত। মশিউর আগে চাকরি করতেন, বর্তমানে বেকার ছিলেন তিনি। আর সাদাত দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন। আর মশিউরের মেয়ে সিনথিয়াকে (১৩) মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়ের্ছে।

শেরে বাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আহাদ আলী বলেন, ‘বিকেলে আমাদের কাছে খবর আসে তালতলা মোল্লাপাড়ার একটি বাসায় বাবা-ছেলে মারা গেছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় বাসার ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছেন মশিউর রহমানের মরদেহ। আর ছেলে সাদাতের মরদেহ বিছানায় পড়ে আছে।

ওসি বলেন, ‘সুরতহালে দেখা যায় সাদাতের গলায় রশির দাগ রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, হয়তো ছেলে ও মেয়েকে হত্যার চেষ্টা করেছেন মশিউর রহমান। আমরা ঘটনাস্থলে মেয়েকে পাইনি। পুলিশ যাওয়ার আগেই মেয়েটিকে উদ্ধার করে এলাকাবাসী স্থানীয় হাসপাতালে পাঠিয়েছেন, তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।’

মোহাম্মদ আহাদ আলী বলেন, সুরতহাল শেষে বাবা ও ছেলের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার নেপথ্যের কি কারণ, হত্যা নাকি আত্মহত্যা; পুরো বিষয়টি পুলিশের পক্ষ থেকে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ