1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:০৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
তানোরে বোরো চাষে খরচ বাড়ছে গোপালগঞ্জ পুইশুরের কৃতিসন্তান মরহুম ছোটন সিকদারের মৃত্যু বার্ষিকী রমজানে পণ্যের অভাব নেই – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাকের পার্টির নেতাকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা সহ টাকা ছিনতাই অভিযাত্রিকের ২৩২৬ সাপ্তাহিক সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত রাজধানীর ডেমরায় যৌতুক লোভী স্বামীর অত্যাচারে গৃহবধু মৌসুমী এখন দিশেহারা গলাচিপায় অবৈধ জাল অপসারণে বিশেষ কম্বিং অপারেশন শুরু গলাচিপায় আইপিএম পদ্ধতিতে বেগুন উৎপাদন শীর্ষক কৃষক মাঠ দিবস মুন্সীগঞ্জ সদরের রিকাবীবাজার মাছ আড়তে ৩৫ মণ জাটকা জব্দ মুন্সীগঞ্জ পৌরসভা উপ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী দুই প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন হয়েছে,আজ থেকে প্রচারণা

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে তারাব পৌরসভার সাবেক মেয়র ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশনের

  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৩৮ ০৫ বার পঠিত

বিশেষ প্রতিনিধিঃ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে তারাব পৌরসভার সাবেক মেয়র মো. মাহবুবুর রহমান খান ও তার স্ত্রী মহিমা রহমানের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
রোববার (২১ জানুয়ারি) দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে সংস্থাটির উপপরিচালক মো. আব্দুল মাজেদ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। দুদকের ঊর্ধ্বতন একটি সূত্র গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
সূত্র মতে, তাদের বিরুদ্ধে ২০ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। প্রথম মামলায় মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে ১৩ কোটি ৬৭ লাখ ৪১ হাজার ১১১ টাকার স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ অসাধু উপায়ে অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। তিনি মাহবুব স্পিনিং মিলস লিমিটেডের বর্তমান চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। দুদকের দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে তিনি মোট ১৪ কোটি ৩ লাখ ৬৩ হাজার ৭৯৬ টাকার স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদের হিসাব দিয়েছেন। যার মধ্যে ১ কোটি ৫১ লাখ ৭১ হাজার ৬৮৫ টাকার সম্পদের বৈধ উৎস পাওয়া গেলেও বাকি টাকার কোনো বৈধ উৎস দুদকের অনুসন্ধানে মেলেনি।
অন্যদিকে দ্বিতীয় মামলায় তার স্ত্রী মিসেস মহিমা রহমানের পাশাপাশি মাহবুবুর রহমান খানকেও সহযোগী আসামি করা হয়েছে। এ মামলায় পেশায় গৃহিণী মহিমার নামে ৬ কোটি ৬৮ লাখ ৪ হাজার ৩৪৮ টাকার স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছে। যা তিনি অসাধু উপায়ে অর্জন করেছেন বলে প্রমাণ পেয়েছে দুদকের অনুসন্ধান কর্মকর্তা। আর ওই সম্পদ তার স্বামীর অবৈধভাবে অর্জিত অর্থ দ্বারা গড়েছেন। যে কারণে স্বামীকে সহযোগী আসামি করা হয়েছে। আসামিদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৭(১) ধারা ও দণ্ডবিধি ১০৯ ধারায় মামলায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ