1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
দেশ বাসিকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাংবাদিক রিয়াজুল হক সাগর গোপালগঞ্জে ঈদুল ফিতরের নামাজের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে রাজধানীতে বাসা থেকে বাবা ও ছেলের মরদেহ উদ্ধার, নিহত ব্যক্তির মেয়েকে মুমূর্ষ উদ্ধার ফসলি জমিতে পুকুর খনন পাকা রাস্তা নষ্ট করে মাটি বানিজ্যে মুক্তাগাছা সাহিত্য সংসদের আলোচনা দোয়া ও ইফতার নওগাঁর বদলগাছীতে পক্ষপাতিত্ব করে মারধর করে ঘর-বাড়ি ভাঙ্গলেন ফাঁড়ির পুলিশ, সংবাদ সংগ্রহের সময় ফাঁড়ি ইনচার্জের হাতে সাংবাদিক লাঞ্চিত তানোরে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে জমি জবরদখল বগুড়ায় শাপলা সুপার মার্কেটে আগুনে ভস্মীভূত ১৫ দোকান মুক্তাগাছায় কৃষক লীগের উদ্যোগে দো’আ,ইফতার ও আলোচনা অনুষ্ঠিত গোপালগঞ্জে কাশিয়ানীতে ইঁদুর মারার বৈদ্যুতিক ফাঁদে এক কৃষকের মৃত্যু

নীলফামারীতে স্ত্রীর মরদেহ ঘরে রেখে স্বামীর বিষ পানে আত্মহত্যার চেষ্টা

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৪৯ ০৫ বার পঠিত

তপন দাস, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ নীলফামারীতে স্ত্রীর মরদেহ ঘরে রেখে স্বামী অন্যত্র গিয়ে বিষ পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের জুগিপাড়া নামক এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় এই ঘটনা টি ঘটে।

নিহত মরিয়ম বেগম (৪৫) জুগিপাড়া এলাকার নুর ইসলামের দ্বিতীয় স্ত্রী।

পুলিশ এবং স্হানীয় সুত্রে জানা যায় মরিয়ম বেগম তার স্বামী সহ জুগিপাড়া এলাকার নুর হক নামে একজনের বাসায় ভাড়া থাকতেন , দুদিন ধরে তাদের ঘরে তালা বন্ধ দেখে স্হানীয়রা জানালা দিয়ে উঁকি দেন। এবং মরিয়ম বেগমকে বিছানায় পড়ে থাকতে দেখে সন্দেহ হলে স্হানীয়দের মাঝে বিষয় টি জানা জানি হলে স্হানীয়রা ঘরের তালা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করলে মরিয়মের লাশ দেখতে পায়। পরে স্হানীয়রা বিষয় টি পুলিশ কে অবগত করেন।

এছাড়া নিহত মরিয়ম বেগমের স্বামী নুর ইসলাম তার স্ত্রীর লাশ ঘরে রেখে অন্যত্র গিয়ে বিষ পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন এবং বিষয় টি স্হানীয় এবং পরিবারের লোকজন ইঙ্গিত করতে পারলে নুর ইসলাম কে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। এবং পুলিশ ঘটনা স্হলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

বিষয় টি নিশ্চিত করে ডিমলা থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি দেবাশীষ রায় বলেন খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয় এবং ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয় আর বিষয়ে একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং নিহত মরিয়ম বেগমের ছোট ভাই থানায় এসে একটি অভিযোগ দায়ের করেন তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত মৃত্যুর প্রকৃত কারন বলা যাচ্ছে না।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ