1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৫৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
তানোরে বোরো চাষে খরচ বাড়ছে গোপালগঞ্জ পুইশুরের কৃতিসন্তান মরহুম ছোটন সিকদারের মৃত্যু বার্ষিকী রমজানে পণ্যের অভাব নেই – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাকের পার্টির নেতাকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা সহ টাকা ছিনতাই অভিযাত্রিকের ২৩২৬ সাপ্তাহিক সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত রাজধানীর ডেমরায় যৌতুক লোভী স্বামীর অত্যাচারে গৃহবধু মৌসুমী এখন দিশেহারা গলাচিপায় অবৈধ জাল অপসারণে বিশেষ কম্বিং অপারেশন শুরু গলাচিপায় আইপিএম পদ্ধতিতে বেগুন উৎপাদন শীর্ষক কৃষক মাঠ দিবস মুন্সীগঞ্জ সদরের রিকাবীবাজার মাছ আড়তে ৩৫ মণ জাটকা জব্দ মুন্সীগঞ্জ পৌরসভা উপ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী দুই প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন হয়েছে,আজ থেকে প্রচারণা

রাজশাহী-১ গোদাগাড়ী তানোর টানা পঞ্চম বারের মত নৌকার মাঝি হলেন ফারুক চৌধুরী

  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৭৫ ০৫ বার পঠিত

রবিউল ইসলাম মিনাল, গোদাগাড়ী(রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ আবারও রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হলেন বর্তমান সংসদ সদস্য ও সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী ওমর ফারুক চৌধুরী। এনিয়ে তিনি টানা পঞ্চম বারের মত আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনোনিত হয়ে নৌকা প্রতীক নিয়ে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবেন।
এর আগে ২০০১ সালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হলেও বিএনপির হেভি ওয়েট নেতা ও সাবেক মন্ত্রী প্রায়াত ব্যারিষ্টার আমিনুল হকের কাছে পরাজিত হন। এর পর ২০০৮ সালে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ওই সময় ব্যারিষ্টার আমিনুল হক জঙ্গিমদদ দাতা ও বাংলাভায়ের উত্থানের অভিযোগে কারাদন্ড হয়ে বিদেশে পলাতক থাকায় সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করতে পারেননি। তার বড় ভাই বাংলাদেশ পুর্লিশের সাবেক আইজিপি ড. এনামুল হক বিএনপির টিকিট নিয়ে ধানের শীষ প্রতিকে নির্বাচন করে। ওই ভোট ওমর ফারুক চৌধুরী বিপুল ভোটে ড. এনামুল হককে পরাজিত করে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এর পর ২০১৪ ও ২০১৮ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হয়ে টানা তিন বারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদের মেয়াদের শেষ দিকে মন্ত্রী সভার রদবদল হলে তিনি শিল্প প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করে। ২০১৪ সালে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হলে মন্ত্রী সভায় ঠাই না হলেও তিনি শিল্প মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থানীয় কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করে।
২০০০ সালের দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতি শুরু করার পর তিনি প্রথমে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। এর পরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিরও দায়িত্ব পালন করেছেন।
ওমর ফারুক চৌধুরী জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামানের আপন ভাগ্নে।
এদিকে টানা পঞ্চম বারের মতো আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী হওয়ায় গোদাগাড়ী ও তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অভিনন্দন জানিয়ে আনন্দ মিছিল করেছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ