1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
রবিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
শনিবার স্বামীর খোঁজে তেঁতুলিয়ায় ভারতীয় তরুণী পঞ্চগড়ে পালিত হলো ১৯ তম বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন দিবস ২০২৩ মসিউর রহমান রাঙ্গার মনোনয়ন স্থগিত মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার ছেলে দীপু চৌধুরী আর নেই রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার বিএনপি নেতা সেলিম প্রধান পঞ্চগড়ে ২০ প্রার্থীর মনোনয় দাখিল, আশা সুষ্টু নির্বাচনের পঞ্চগড়ে হাজারো নেতাকর্মীর ভালবাসায় সিক্ত নাইমুজ্জামান ভূঁইয়া মুক্তা পঞ্চগড়-২ আসনে মনোনয় ফরম সংগ্রহ রেলমন্ত্রীর রাজশাহী-১ গোদাগাড়ী-তানোর বিএনপির শরীফ নয়, বিএনএমের প্রার্থী হলেন শামসুজ্জোহা বাবু রাজশাহী-১ গোদাগাড়ী তানোর টানা পঞ্চম বারের মত নৌকার মাঝি হলেন ফারুক চৌধুরী

*** প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ***

  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৫ মে, ২০২৩
  • ১৪২ ০৫ বার পঠিত

তানোরে ভুল চিকিৎসায় পেটে বাচ্চাসহ দুই গাভীর মৃত্যু 

শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কার্যালয়ে কর্মরত লাইভস্টক ফিল্ড এ্যাসিস্টেন্ট (এলএফএ) মামুনুর রশিদ। গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রতিবাদলিপিতে তিনি বলেন, গত ৪ ও ৫মে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টাল ও পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদগুলো তার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। প্রকাশিত সংবাদে তাকে জড়িয়ে যেসব কথা বলা হয়েছে, তা সত্য নয় সম্পুর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত। তাকে সামাজিক ভাবে হেয়ওপ্রতিপন্ন করতেই তার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ করা হয়েছে। উক্ত সংবাদের তিনি তীব্র নিন্দা ও  প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রকৃত ঘটনা হলো উপজেলার কামারগাঁ ইউনিয়নের (ইউপি) জমশেদপুরগ্রামের তোফাজ্জুল হোসেনের পুত্র ওয়াসিম আকরামের দুটি গরু বেশ কিছুদিন যাবত গুরুতর অসুস্থ হয়ে রয়েছে। এমতাবস্থায় গত ২৮ এপ্রিল গরুর চিকিৎসার জন্য ওয়াসিম তাকে ফোন করে ডাকেন। এদিন মামুনুর রশিদ তার বাড়ি গিয়ে গরু দুটির বেগতিক অবস্থা দেখে গরুর মালিক ওয়াসিমকে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার কাছে যাবার পরামর্শ দেন। কিন্ত্ত ওয়াসিম বলেন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কার্যালয়ে যেতে অনেক সময়ের প্রয়োজন,তাই প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য তিনি মামুনুর রশিদকে অনুরোধ করেন। তার অনুরোধে তিনি গরুকে প্যারাসিটামল ও ভিটামিন গ্রুপের দুটি ওষুধ লিখে দেন। কিন্ত্ত তিনি আসার কদিন পর গরু দুটি মারা যায়। অথচ গরুর মৃত্যুর জন্য মামুনুরকে দায়ি করে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করা হয়। এখন প্রশ্ন হলো গরু যেকোনো কারণে মারা যেতেই পারে, তাই বলে সুনিদ্রিষ্ট তথ্য-উপাত্য ব্যতিত কাউকে দায়ী করা যায় না। এমনটা হলে তো কেউ আর কোনো গৃহপালিত প্রাণীর চিকিৎসা করাতে আসবে। মামুনুরের দেয়া ওষুধ খেয়ে গরু মারা গেছে এটা কে নিশ্চিত করলো, কোনো প্রাণী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক কি মৃত গরুর ময়নাতদন্ত করে তার মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত করেছে, করেনি তাহলে অনুমান করে কেনো মামুনুরকে দোষারোপ করা হচ্ছে। তারা মৃত গরুর ময়নাতদন্ত করে দেখাক মামুনুরের কারণে গরুর মৃত্যু হয়েছে, এর আগে তো তাকে দোষারোপ করা অনৈতিক। মামুনুরের বাড়ি কলমা ইউপি আর গরুর মালিকের বাড়ি কামারগাঁ ইউপি তাহলে কি মামুনুর স্বপ্ন দেখে তার বাড়িতে গিয়েছিল। তাকে অনুরোধ করে ডেকেছিলেন বলেই তো তিনি তার অনুরোধে প্রাথমিক চিকিৎসা করেছেন। এবিষয়ে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) সুমন মিয়া বলেন, কোনো প্রাণী মারা গেলে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট ব্যতিত কাউকে দোষারোপ করা ঠিক নয়।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ