1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১০:৪৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
কক্সবাজারে এক তরুণীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার কোটচাঁদপুর রাতের আঁধারে এতিম খানায় কম্বল হাতে ইউএনও খান মাসুম বিল্লাহ কোটচাঁদপুর পৌর বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্নের প্রতিবাদে পৌর মেয়রের সংবাদ সম্মেলন পঞ্চগড়ে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে সার্বক্ষনিক স্বাভাবিক প্রসব সেবা জোরদার করণ বিষয়ক দিনব্যাপী কর্মশালা অনূষ্ঠিত খোঁজ মিললো নিখোঁজ প্রার্থী আসিফের তানোরে মটর মালিকের দৌরাত্ম্য কৃষকেরা অতিষ্ঠ গোদাগাড়ীতে শেখ কামাল আন্ত: স্কুল ও মাদ্রাসা অ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতার শুভ উদ্বোধন বরগুনা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির সহযোগী করছে ছাত্রলীগ কর্মীরা পাইকগাছা উপজেলা খাদ্যগুদামে খাওয়ার অনুপযোগী চাউল স্যাম্পল রেখে ফেরত সংশ্লিষ্ট দপ্তরে চিঠি প্রশংসায় ভাসছেন ইউএনও মমতাজ বগুড়া-৪ আসনে ৮৩৪ ভোটে হারলো হিরো আলম, জয়ী তানসেন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের নির্বাচনে সরে দাঁড়ালেন আ. লীগ নেতারা

  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৩৫ ০৫ বার পঠিত

মইনুল ভূইয়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া -ঃ- আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত তিন প্রার্থী ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচনের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। জেলা নেতাদের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় নির্দেশনা পেয়ে শনিবার সকালে তারা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। 

মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা ওই তিনজন হলেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মঈন উদ্দিন মঈন, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু। ১৯৭৩ সালের পর এ আসনে আওয়ামী লীগের কোনো প্রার্থী সংসদ সদস্য হতে পারেননি। 

প্রার্থী হিসেবে রয়ে যাওয়া পাঁচজন হলেন, পাঁচবারের সাবেক সংসদ সদস্য আবদুস সাত্তার ভূইয়া, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও এ আসনের জাতীয় পার্টির সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা, জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব আবদুল হামিদ ভাসানী, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও আশুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এবং উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবু আসিফ আহমেদ, জাকের পার্টির প্রার্থী মো. জহিরুল ইসলাম। মোট ১৩ জন মনোনয়নপত্র কিনলে পাঁচজনের বাতিল হয়।

শুক্রবার জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে প্রার্থীদের সঙ্গে  হওয়া বৈঠকে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি র. আ. ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, সাধারন সম্পাদক আল-মামুন সরকারসহ দলের কয়েকজন সিনিয়র নেতা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে জানানো হয়, উপ-নির্বাচনের এক বছর পরই সেখানে হওয়া পরবর্তী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে হলে যেন প্রার্থীরা সিদ্ধান্ত মেনে নেন।  

এ অবস্থায় আসনটি কপাল খুলতে যাচ্ছে পদত্যাগ-পরবর্তী বহিস্কার হওয়া বিএনপি’র সাবেক নেতা আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়ার! সংসদ থেকে বিএনপি’র পদত্যাগকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে সাত্তারকে সরকার নির্বাচনে দাঁড় করিয়েছেন বলে দলটির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হচ্ছিল।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আল-মামুন সরকার দলের সঙ্গে জড়িত প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা করার বিষয়টি স্বীকার করেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এখানে যেহেতু দল কোনো প্রার্থী দেয়নি সেক্ষেত্রে দলের কথা বলে কেউ প্রার্থী হতে পারেন না। তারা স্বেচ্ছায় মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলাম।’

শনিবার বিকেলে পৃথক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এ নির্বাচনটা হতে যাচ্ছে অনেকটা অসময়ে। সামনেই দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন। আমাদের দলের তিনজন প্রার্থী হওয়ায় বিভেদ দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। তাই দলের ঐক্য ঠিক রাখতে এটা ভালো হয়েছে। সম্ভাব্য প্রার্থীরা এখন পরবর্তী নির্বাচনের জন্য মাঠ গুছাতে বেশ সময় পাবেন।’ 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ