1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
গণমাধ্যম ও মানবাধিকার সংস্থা ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটি (এনপিএস) খুলনা বিভাগ লাকসাম আজগরা ইউপি আ’স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী সমাবেশ ও পরিচিত সভা অনুষ্ঠিত গাজীপুরে দুদকের গণশুনানি অনুষ্ঠিত বিরামপুরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ বগুড়ায় দুদিনব্যাপী জামাই মেলা: বড় মাছ কেনার লড়াইয়ে জামাই-শ্বশুর অভিযাত্রিক সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংসদ-এর ২২৭২ তম সাপ্তাহিক সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত প্রশাসনের বন্ধ করা অবৈধ ইটভাটা ফের চালু তানোরে কৃষক দলের আহবায়ক কমিটি গঠন তানোরের দুই মেয়র গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপণে নাগেশ্বরীতে ১৮ টি সংখ্যালঘু পরিবার সরকারের সকল সুবিধা থেকে বঞ্চিত। বাস্তবায়ন হয়নি, মন্দিরের সংস্কার কাজ

চৌবাড়িয়ায় রাস্তা নির্মাণ কাজে অনিয়ম

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৪২ ০৫ বার পঠিত

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি -ঃ- রাজশাহীর তানোরের সীমান্তবর্তী মান্দার চৌবাড়িয়া হাটে আরসিসি(ঢালায়) রাস্তা নির্মাণ কাজে নিম্নমাণের সামগ্রী ব্যবহারসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।স্থানীয়রা জানান, সিডিউল মোতাবেক রড না দেয়া, ভরাটে মাটি মিশ্রি বালুর ব্যবহার, রাস্তার পুরাতন ইট দিয়ে এজিং এবং ঢালায়ে পরিমাণ মতো সিমেন্ট না দেয়াসহ নানা অনিয়ম করা হচ্ছে। এতে রাস্তার স্থায়িত্ব নিয়ে সাধারণের মনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।
জানা গেছে, চৌবাড়িয়া হাটের কড়াইতলা থেকে আয়োরপাড়া পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৫ কিলোমিটার রাস্তা (এর মধ্যে ২০০ মিটার আরসিসি ঢালায়) মেরামত কাজে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় শোয়া ৩ কোটি টাকা।ঠিকাদারি কার্যাদেশ পেয়েছেন নওগাঁ জেলা সদরের জনৈক জনি।
এদিকে গত ১০ জানুয়ারি মঙ্গলবার সরেজমিন দেখা যায়, চৌবাড়িয়া হাটের কড়ইতলা থেকে ২০০ মিটার রাস্তার আরসিসি ঢালায় কাজ চলমান রয়েছে। কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, রড বিছানো হয়েছে অনেক ফাঁক ফাঁক করে। পুরাতন রাস্তা উল্টানো ইটের খোয়া ব্যবহার এবং  পর্যাপ্ত পাথর সিমেন্ট ব্যবহার হচ্ছে না। ঢালায়ে অধিকাংশ সময় এলজিইডির কোনো কর্মকর্তা 
থাকে না। সন্ধ্যার আগে ও পরে রড বিছানো হয় এবং শীতের সকালে ঢালায় দেওয়া হচ্ছে। তারা বলেন, কাজের নিয়ে কিছু বললেই ঠিকাদার জনি ও তার মিস্ত্রিরা বলে রাস্তার কাজ হচ্ছে এটাই অনেক, যে বরাদ্দ হয়েছে তাতে এই কাজ করলে এমনিতেই লাখ লাখ টাকা লোকসান হবে, সব কিছুর দ্বিগুন দাম, যে কাজ হচ্ছে সেটাই অনেক, ঠিকাদার কাজ করবে না, কর্তৃপক্ষের  অনুরোধে কাজ করছেন। এবিষয়ে জানতে ঠিকাদার জনির ব্যক্তিগত (০১৭৮৯৭৮৭৮৯৬) মুঠোফোন  নম্বরে একাধিক বার ফোন দেওয়া হলেও তিনি রিসিভ না করায় তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এবিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  মান্দা উপজেলা এলজিইডির এসও রায়হান আলী এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন , ১০ মিলি রড ব্যবহার করা হচ্ছে, নিয়ম মতই কাজ হচ্ছে। তবে অফিসের কেউ নেই অনেক জায়গায় রড কম দেয়া হচ্ছে এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, এমন হওয়ার কথা না, এমন হলে ঢালায়ের সময় তুলে নিয়ম মতো দেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ