1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:২০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
গণমাধ্যম ও মানবাধিকার সংস্থা ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটি (এনপিএস) খুলনা বিভাগ লাকসাম আজগরা ইউপি আ’স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী সমাবেশ ও পরিচিত সভা অনুষ্ঠিত গাজীপুরে দুদকের গণশুনানি অনুষ্ঠিত বিরামপুরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ বগুড়ায় দুদিনব্যাপী জামাই মেলা: বড় মাছ কেনার লড়াইয়ে জামাই-শ্বশুর অভিযাত্রিক সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংসদ-এর ২২৭২ তম সাপ্তাহিক সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত প্রশাসনের বন্ধ করা অবৈধ ইটভাটা ফের চালু তানোরে কৃষক দলের আহবায়ক কমিটি গঠন তানোরের দুই মেয়র গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপণে নাগেশ্বরীতে ১৮ টি সংখ্যালঘু পরিবার সরকারের সকল সুবিধা থেকে বঞ্চিত। বাস্তবায়ন হয়নি, মন্দিরের সংস্কার কাজ

বগুড়ায় শুরু হয়েছে জেলা ইজতেমা শনিবার আখেরী মোনাজাত

  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ২৭ ০৫ বার পঠিত

মিরু হাসান, বগুড়া সংবাদদাতা -ঃ- ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের প্রথম বাইপাস বারপুর-ঝোপগাড়ি জেলা তাবলীগ মারকাজ মসজিদ এলাকার শুরু হয়েছে বগুড়া জেলা ইজতেমা। আগামী ২৪ ডিসেম্বর শনিবার আখেরী মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে তিন দিনব্যাপি ইজতেমা।


সৌদি, ভারত, রাশিয়া, মরক্ক, ইংল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশেরমুসল্লিসহ হাজার হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের ঢল নেমেছে ইজতেমা ময়দানে। দিল্লির নিজাম উদ্দিন মারকাজের অনুসারীগণ এই ইজতেমার আয়োজন করেন।
জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে কাঁধে-পিঠে প্রয়োজনীয় মালামাল নিয়ে নিজ নিজ খিত্তায় অবস্থান নিচ্ছেন মুসল্লিরা। ইজতেমা প্রাঙ্গণের আশপাশের এলাকায় শীতের পোশাক, খাবারের দোকান ও কাঁচাবাজার বসেছে। ইজতেমা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সেখানে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে জানা যায়, ইজতেমায় ইসলামের সুমহান বাণী, তাওহীদ তথা একত্ববাদের দাওয়াত পৌঁছে দেওয়া ও দ্বীন সম্পর্কে সবাইকে জানানোই হচ্ছে তাবলীগের প্রধান কাজ। আয়োজকরা আশা করছেন ৩ লক্ষাধিক ধর্মপ্রাণ মুসলমান এ ইজতেমায় অংশ নেবেন। মেহমানদের চিকিৎসা সেবার ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় এখানে পুলিশের টিম রয়েছে। ইজতেমার জন্য নির্ধারণ করা এলাকায় লাগানো হয়েছে বাঁশের খুঁটির সঙ্গে চট, কাপড়। সারিবদ্ধভাবে তৈরি করা হয়েছে রান্নার জায়গা। প্রস্রাব-পায়খানার জন্য ব্যবস্থা করা রয়েছে। গোসলের জন্য পুকুরের ঘাট বেঁধে দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে ইজতেমার আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে।

ইজতেমার আয়োজক কমিটির মো. শাহ আলম জানান, নিজেদের আত্মশুদ্ধি এবং আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের লক্ষ্যে এই ইজতেমার আয়োজন করা হয়েছে। সবকিছু শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হলে আগামী বছর থেকে আরও বড় করে আয়োজন করা হবে। ইজতেমায় লক্ষাধিক মেহমানের থাকার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিনি আরো জানান, এবারের ইজমেতায় কুরআন ও হাদিসের উপর কথা বলবেন দিল্লির নিজাম উদ্দিন, ঢাকার কাকরাইলের সহ অন্যান্য সাথীগণ। আগামী শনিবার আখেরী মোনাজামের মধ্য দিয়ে শেষ হবে তিন দিনব্যাপি বগুড়া জেলা ইজতেমা।

ইজতেমায় শেরপুর উপজেলা থেকে আসা মুসল্লি মো. মোকাব্বর হোসেন জানান, তিনি প্রতি বছর ইজতেমায় আসেন নিজেদের আত্মশুদ্ধি এবং আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের লক্ষ্যে। দ্বীনের কথা ও আলোচনা শোনার জন্য অনেক মুসলমান এখানে একত্রিত হন। অনেক ভালো লাগে। এখানে কুরআন থেকে হাদিস বর্ণনা করা হয়। জীবনে চলার পথে এই ইজতেমা থেকে অনেক কিছু শেখা যায়।

বগুড়া সদর থানার ওসি মো. নূরে আলম সিদ্দিকি বলেন, ইজতেমা এলাকা জুড়ে পুলিশী নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। পর্যায়ক্রমে তারা দায়িত্ব পালন করছেন। বিদেশি মুসল্লিদের নিরাপত্তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে ইজতেমা মাঠে পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার পাশপাশি তাবলীগ জামায়াতের নিজস্ব সদস্যরাও পাহারার দায়িত্ব পালন করছেন। ইজতেমা স্থান মহাসড়ক সংলগ্ন হওয়ায় যানবাহন চলাচল ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ সর্তকবস্থায় থাকবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ