1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:৩৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
গাজীপুরে দুদকের গণশুনানি অনুষ্ঠিত বিরামপুরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ বগুড়ায় দুদিনব্যাপী জামাই মেলা: বড় মাছ কেনার লড়াইয়ে জামাই-শ্বশুর অভিযাত্রিক সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংসদ-এর ২২৭২ তম সাপ্তাহিক সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত প্রশাসনের বন্ধ করা অবৈধ ইটভাটা ফের চালু তানোরে কৃষক দলের আহবায়ক কমিটি গঠন তানোরের দুই মেয়র গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপণে নাগেশ্বরীতে ১৮ টি সংখ্যালঘু পরিবার সরকারের সকল সুবিধা থেকে বঞ্চিত। বাস্তবায়ন হয়নি, মন্দিরের সংস্কার কাজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় ভারত সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ছুরিঘাতে আহত  এক যুবক উদ্ধার আখাউড়ায় তিন টিকেট কালোবাজারিকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

লামার ফাঁসিয়াখালীতে এম.এস.বি নামক অবৈধ ইট ভাটায় অবাধে পুড়ছে কাঠ এবং ফসলি জমি থেকে তুলছে মাটি

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২
  • ৩৬ ০৫ বার পঠিত

মোঃ এমরান, বান্দরবান প্রতিনিধি -ঃ- ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইনে স্পষ্ট বলা আছে, ‘আপাতত বলবৎ অন্য কোনো আইনে যাহা কিছুই থাকুক না কেন, ইটভাটা যে জেলায় অবস্থিত সেই জেলার জেলা প্রশাসকের নিকট হইতে লাইসেন্স গ্রহণ ব্যতিরেকে, কোনো ব্যক্তি ইটভাটা স্থাপন ও ইট প্রস্তুত করিতে পারিবে না।’ তবে এ আইনের তোয়াক্কা না করেই পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়া বছরের পর বছর MSB নামের অবৈধ ইট ভাটা টি চলছে। মালিকেরা প্রতি বছর কোটি কোটি টাকার মুনাফা করলেও সরকার হারাচ্ছে রাজস্ব। আসন্ন মৌসুমেও এই ভাটায় ইট পোড়ানোর জোরালো প্রস্তুতি চলছে। এবং ইট পোড়ানোর কাজ শুরু হয়েছে।

অপরিকল্পিতভাবে যত্রতত্র গড়ে ওঠা এসব ভাটার কারণে নষ্ট হচ্ছে পরিবেশের ভারসাম্য। ফসলের ক্ষয়ক্ষতিসহ জনস্বাস্থ্যের জন্য চরম হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে অবৈধ এই ইট ভাটা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ০৩ নং ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ০৩ নং ওয়ার্ডের মালুম্মা গ্রাগে BSB নামে গড়ে উঠা একটি অবৈধ ইট ভাটা। । ফসলি জমিতে স্থাপিত এই ভাটায় পুরোদমে ইট তৈরির জোর প্রস্তুতি চলছে। শ্রমিকেরা দিনরাত কাজ করছেন ইট তৈরির জন্য।

ইটভাটার কারণে এক দিকে ক্ষতি হচ্ছে ফসলী জমির। অপরদিকে পরিবেশের। রাস্তার পাশের বাড়িগুলো ধোলায় ভর্তি থাকে সব সময়। ভাটার পাশে কোন গাছপালার ফলও ধরে না। মানুষের বিভিন্ন ধরনের রোগভালাই ঝেঁকে বসেছে দূষিত পরিবেশের জন্য । স্কুল, মাদ্রাসার সাথে ইট ভাটা গড়ে উঠার কারণে স্কুল, মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন ধরনের হাঁচি কাশি জনিত রোগ ব্যধিত লেগেই থাকে ।

ইট ভাটার ট্রাক রাস্তার পাশ দিয়ে চলাচলের কারণে মাটির ট্রাক থেকে মাটি পড়ে রাস্তা ধুলায় একাকার হয়ে যায়। জনজীবন হয়ে পড়ে বিপন্ন। সেই কারণে রাস্তা দিয়ে মানুষ চলাচল করতে গেলে ধুলো দিয়ে সারা শরীর ডেকে যায়। একটু বৃষ্টি হলে কাঁদায় রাস্তা দিয়ে চলাচল করা যায় না। এছাড়া ইট উৎপাদনের জন্য জমির টপ সয়েল কেটে নেয়া হচ্ছে, জমিতে পানির জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। আবাদি জমি এখন পতিত পড়ে রয়েছে।
ইট প্রস্তুত ও ইটভাটা আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে পরিবেশের মারাত্বক ক্ষতিসাধন করে ক্ষমতার ধাপট দেখিয়ে ফসলি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় নিয়ে ইট তৈরি করছে।

পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ইট প্রস্তুত ও ইটভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইন (২০১) ধারায় সম্পূর্ণভাবে উল্লেখ আছে, জেলা প্রশাসকের লাইসেন্স ব্যতিত কোন ব্যক্তি ইটভাটা প্রস্তুত করতে পারবে না। ঐ আইনে আরও উল্লেখ করা আছে যে তিন কিলোমিটারের মধ্যে বাড়ী ঘর ও বসতি এলাকা ফলজ ও বনজ-বাগান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থাকলে ইটভাটা অনুমোদন হবে না। কিন্তু MSB ইট ভাটা সেই আইনের তোয়াক্কা না করে গড়ে উঠেছে, যা মানুষের বসতি বাড়ী ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ফলজ ও বনজ বাগানের নিকটে গড়ে উঠেছে। ফলে মানুষ ও ফসলি জমি হুমকির মুখে পড়েছে। এই ইট ভাটা পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড় পত্র ও জেলা প্রসাশকের লাইসেন্সবিহীন গড়ে তুলেন।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ লোকালয়ে গড়ে উঠা এই ইট ভাটার ধোয়ায় আশপাশের বাড়িগুলোর অনেক গাছ মরে গেছে। নারকেল, সুপারি গাছে ফুল থেকে ফল ধরার কয়েকদিন পর তা ঝরে পড়ছে। অন্যান্য ফল গাছেরও একই অবস্থা। এই ইট ভাটার মালিকরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস করেন না ভুক্তভোগীরা।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ