1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:১৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
প্রশাসনের বন্ধ করা অবৈধ ইটভাটা ফের চালু তানোরে কৃষক দলের আহবায়ক কমিটি গঠন তানোরের দুই মেয়র গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপণে নাগেশ্বরীতে ১৮ টি সংখ্যালঘু পরিবার সরকারের সকল সুবিধা থেকে বঞ্চিত। বাস্তবায়ন হয়নি, মন্দিরের সংস্কার কাজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় ভারত সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ছুরিঘাতে আহত  এক যুবক উদ্ধার আখাউড়ায় তিন টিকেট কালোবাজারিকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা কক্সবাজারে এক তরুণীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার কোটচাঁদপুর রাতের আঁধারে এতিম খানায় কম্বল হাতে ইউএনও খান মাসুম বিল্লাহ কোটচাঁদপুর পৌর বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্নের প্রতিবাদে পৌর মেয়রের সংবাদ সম্মেলন পঞ্চগড়ে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে সার্বক্ষনিক স্বাভাবিক প্রসব সেবা জোরদার করণ বিষয়ক দিনব্যাপী কর্মশালা অনূষ্ঠিত

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে যুবলীগ নেতা নিহত নেপথ্যে নারী মাদক ও জুয়ার আসর নিয়ন্ত্রন

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২
  • ২২ ০৫ বার পঠিত

মোঃ আবু সুফিয়ান শান্তি, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি -ঃ- জুয়া ও মাদক ব্যবসা নিয়ে দ্বন্দে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা আরিফ হোসেন (৪৮) নিহত হয়েছেন। সংঘর্ষে আহত হন অন্তত ১০জন। এদিকে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে এ সময় আহত হন কালীগঞ্জ পৌর কাউন্সিলর মেহেদী হাসান সজল। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে কালীগঞ্জ পৌরসভাধীন কাশিপুর বেদে পল্লীতে এ সংঘর্ষের ও ঘটনা ঘটে।

 যুবলীগের সাবেক ওয়ার্ড সম্পাদক নিহত আরিফ কাশিপুর গ্রামের মৃত ইব্রহিম লস্কারের ছেলে। কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম বুধবার সকালে জানান, দীর্ঘদিন ধরে কাশিপুর বেদে পল্লীতে জুয়া ও মাদক ব্যবসা চলে আসছে। এ নিয়ে সাপুড়িয়া মনিরুল ইসলাম ও রাসেলের মধ্যে দ্বন্দ চলে আসছিল।

 মাদক ও জুয়ার বিরুদ্ধে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নিয়ে বেদে পল্লীতে মোটিভেশন সভা করেন। তারপরও সেখানে জুয়া ও মাদক বন্ধ করা যায়নি। তিনি বলেন, নিহত আরিফ জুয়া ও মাদক ব্যবসায় টাকা লগ্নিকারী হিসেবে বেদেপল্লী নিয়ন্ত্রন করতেন। 

তিনি আগের কমিটিতে যুবলীগের পদে ছিলেন, কিন্তু এখন নেই। এদিকে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার রাতে জুয়া খেলা ও নারীঘটিত বিষয়কে কেন্দ্র করে মনিরুল ইসলাম ও রাসেল সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হলে যুবলীগ নেতা আরিফ হোসেন, বেদে পল্লীর মালা বেগম, শাবনুর খাতুন, নীরব হোসেন ও পাশ^বর্তী গ্রামের আব্দুল লতিফসহ অন্তত ১০ ব্যক্তি আহত হন। 

এসময় সাপুড়িয়া রাসেলের সমর্থকরা মনিরুল সমর্থকদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। সংবাদ পেয়ে রাত ৮টার দিকে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মেহেদী হাসান সজল, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি খলিলুর রহমান ও কালীগঞ্জ থানার এসআই আশিকুর রহমান ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করলে তাদের উপর সাপুড়িয়া রাসেল গ্রুপের লোকজন ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। 

আহতদের মধ্যে আরিফ হোসেন, বেদে পল্লীর মালা বেগম, পাশ্ববর্তী গ্রামের আব্দুল লতিফকে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নেওয়া হয়। মঙ্গলবার মধ্যরাতে আরিফকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে ফরিদপুর পৌছালে তিনি মারা যান। অভিযোগ উঠেছে গোটা কালীগঞ্জ উপজেলায় মাদকের বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ নমনীয়। ৩/৪ দিন আগে কালীগঞ্জ থানার এসআই জাকারিয়া সেখানে অভিযান চালাতে গিয়ে প্রহৃত হলেও দায়ীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। 

কালীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুর রহিম মোল্লা মাদক ও জুয়ার বিষয়টি এড়িয়ে যান। তিনি বলেন, বেদে পল্লীতে এক নারী নির্যাতনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আরিফ নিহত হয়েছে। তিনি বলেন এ ঘটনায় এখনো কোন মামলা হয়নি। এলাকায় পুলিশ টহল জোরদার করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ