1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:১৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
চকরিয়ার সবুজবাগে ড্রেনের পানি চলাচল পথ দখলে নিয়ে রাস্তা নির্মাণ, জনদুর্ভোগের আশঙ্কা খাদের কিনারে যাচ্ছে দেশের অর্থনীতি,এমপি ব্যারিস্টার শামীম পাটোয়ারী কুড়িগ্রামে সংবাদ টিভির কেক কাটার মাধ্যমে পঞ্চম বর্ষে পদার্পণ উদযাপিত হলো বাংলাদেশ প্রিন্টিং মাষ্টার এসোসিয়েশন এর প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন মসজিদে নামাজ পড়াতে গিয়ে ইমামের সাইকেল চুরি রাংগাঝিরি মোঃ ইউনুছ চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত চৌদ্দগ্রামে ব্যাটমিন্টন খেলাকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাংয়ের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১ ছাতকে খেলাফত মজলিসের আলোচনা সভা ও দোওয়া মাহফিল রাজশাহী কারাগারে গোদাগাড়ীর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে নবাব ফয়জুন্নেছার ওয়াকফকৃত সম্পত্তি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন

আওয়ামী লীগের ১০ বছরে উন্নয়নের হালচাল

  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২২
  • ৩৯ ০৫ বার পঠিত

আলিফ হোসেন, তানোর -ঃ- রাজশাহীর তানোরে সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী ও সাংসদ আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধূরীর এমপির প্রচেষ্টায় আওয়ামী লীগ সরকারের বিগত ১০ বছরে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে ব্যাপক উন্নয়ন অর্জিত হয়েছে কমেছে দারিদ্রতার হার অনেক গৃহহীন পেয়েছেন মাথা গোজার ঠাই বেড়েছে জীবনযাত্রার মান অনেকে হয়েছেন স্বাবলম্বী।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, তানোরে বিগত ১৯৯১ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াত জোট সরবারের সময়ে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী প্রকল্পে বরাদ্দ ছিল মাত্র ২.১৭৪ মেট্রিক টন চাল ও ৩ কোটি ৩৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা। আর আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে বরাদ্দ করা হয়েছে ৭.২০০ মেট্রিক টন চাল ও ৩০ কোটি ২৬ হাজার ৪৮ টাকা অর্থাৎ বিএনপির সময় থেকে আওয়ামী লীগের সময়ে বিগত ১০ বছরে এই খাতে ১৮৬০ মেট্রিক টন ও ২৬ কোটি ৬৩ লাখ ৭৬ হাজার ৪৬৮ টাকা বেশি বরাদ্দ করা হয়েছে।
অন্যদিকে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে মানবিক সহায়তা কর্মসুচিতে বরাদ্দ ছিল ৩৯১ মেট্রিক টন চাল ও ৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা, আওয়ামী লীগের সময়ে বিগত ১০ বছরে এই খাতে বরাদ্দ করা হয়েছে ১.৯৬০ মেট্রিক টন চাল ও ২৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা অর্থাৎ বিএনপির থেকে আওয়ামী লীগের সময়ে বিগত ১০ বছরে এই খাতে ১৫৬৯ মেট্রিক টন চাল ও ১৭ লাখ টাকা বেশি বরাদ্দ করা হয়েছে। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি বাবদ বরাদ্দ ছিল এক কোটি ৫ লাখ ১০ হাজার টাকা আর আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে বিগত ১০ বছরে এই খাতে ২৮টি প্রকল্পের মাধ্যমে ব্যয় করা হয়েছে ৭ কোটি ৭৫ লাখ ১২ হাজার টাকা, অর্থাৎ জোট সরকারের থেকে আওয়ামী লীগ সরকারে সময়ে এই খাতে ৬ কোটি ৭০ লাখ ১২ হাজার টাকা বেশি বরাদ্দ করা হয়েছে। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে এলজিইডির মাধ্যমে ৫৯.৩৯৯ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে আর আওয়ামী লীগের ১০ বছর সময়ে এলজিইডির মাধ্যমে ১৫৭.৭৩৬ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে অর্ধাৎ জোট সরকারের থেকে আওয়ামী লীগের সময়ে ৯৮.৩৩৭ কিলোমিটার রাস্তা বেশি নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়াও পল্লী উন্নয়ন সড়ক (জিওবিএম) প্রকল্প ছিল না এটি আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে চালু করা হয়েছে এবং এই প্রকল্পের মাধ্যমে ১১৪.৮৬৮ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে এই প্রকল্প উপজেলার সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখছে। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে উপজেলা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণের জন্য কোনো অর্থ বরাদ্দ ছিল না, তবে আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে এই খাতে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে এবং উপজেলা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ শুরু হয়েছে, সম্পন্ন হলে উপজেলার ভাবমূর্তি অনেক উজ্জ্বল হবে।
বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণের জন্য কোনো অর্থ বরাদ্দ ছিলনা তবে, আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে এই খাতে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে এবং মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন পরিষদে আর্থিক অনুদান ও কর্মসূচির মাধ্যমে মহিলা নিয়োগের সুযোগ ছিল না, তবে আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে ৭টি ইউনিয়নে দুই ধাপে ৭০ জন করে মোট ১৪০ জন মহিলা নিয়োগ দেয়া হয়েছে এবং এই কর্মসূচির মাধ্যমে ২ কোটি ৩৮ লাখ ২৮ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে বরেন্দ্র বহুমুখীউন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিএমডি’র মাধ্যমে ৪১.৪৬ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে আর আওয়ামী লীগের সময়ে ৫১.৪৭৩ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে অর্ধাৎ জোট সরকারের থেকে আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে ১০.০১ কিলোমিটার বেশি রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে পাকা রাস্তা মেরামত সংস্কারে কোনো অর্থ রাদ্দ ছিল না তবে আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে বিগত ১০ বছরে এই খাতে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে এবং ৪৩.৫১ কিলোমিটার রাস্তা মেরামত ও সংস্কার করা হয়েছে।গভীর নলকুপ স্মার্ট কার্ড বেজড প্রিপেইড মিটার মিটার স্থাপনের ব্যবস্থা ছিল না তবে, আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে গভীর নলকুপের স্মার্ট কার্ড ও বেজড প্রিপেইড মিটার স্থাপনের ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং ৫৩৬টি গভীর নলকুপে স্মার্ট কার্ড ও প্রিপেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছে অর্থাৎ প্রতিটি ক্ষেত্রে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের থেকে আওয়ামী লীগ সরকারের প্রায় ৫ গুন বেশি উন্নয়ন হয়েছে, এতে মানুষের আয় বেড়েছে ও বেড়েছে জীবন যাত্রার মান। এছাড়াও প্রায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে উপজেলা চত্ত্বরে মডেল মসজিদ এ্যান্ড ইসলামিক কালচারাল ভবন নির্মাণ। গ্রাম হবে শহর প্রকল্প গ্রহণ। অন্যদিকে উপজেলায় আশ্রায়ণ প্রকল্পে ১ম, ২য় এবং ৩য় পর্যায়ে মোট ৩২৩টি গৃহহীন পরিবারের মাঝে এসব ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য প্রায় ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৬টি বীর নিবাস নির্মাণ করা হচ্ছে। সচেতন মহলের অভিমত, আওয়ামী লীগ সরকারের সময়ে বিগত ১০ বছরে প্রতিটি ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক পরিবর্তন অর্জিত হয়েছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ