1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
রংপুরে সাহিত্য সংস্কৃতি সামাজিক সংগঠন ‘ফিরেদেখা আয়োজনে রোকেয়ার ভাস্কর্যে পুষ্পমাল্য অর্পণ ইউএনও সহ পাইকগাছার ৫ নারী পেলন জয়িতা সম্মাননা বাগাতিপাড়ায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালিত সরকারী সুবিধা বঞ্চিত মহাছেনা’র জীবন হাতে হাত রেখে সরকারি কর্মকর্তা, শিশু থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ ‘না’ বললো দুর্নীতিকে ‘বিজিবি -বিএসএফ এর সীমান্ত বৈঠক ফলপ্রসু হয়েছে’  আদমদীঘিতে নৈশপ্রহরীর ২য় স্ত্রীর আত্মহত্যা গোদাগাড়ীতে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও ২০২২ উদযাপন উপলক্ষে মানববন্ধন ও আলোচনা সভা পাকুন্দিয়ায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতি দিবস পালিত অভিযাত্রিক সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংসদ এর ২২৬৪তম সাপ্তাহিক সাহিত্য আসর

মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সনদ বিতরণ করলেন রাজাকার পূত্র

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২২
  • ৩২ ০৫ বার পঠিত

কুমিল্লা প্রতিনিধি -ঃ- কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সনদ ও স্মার্ট এনআইডি কার্ড বিতরণ করলেন রাজারপূত্র উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুদ্দিন কালু। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরের উপজেলা মুক্তি সংসদের আয়োজনে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের সেমিনার কক্ষে এ সনদ বিতরণ করা হয়। এ নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারণ মানুষের মাঝে ব্যাপক বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে।

 
সূত্রে জানা যায়, পুরো উপজেলা ব্যাপী মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে স্মার্ট মুক্তি সদন ও স্মার্ট এনআইডি কার্ড বিতরণের একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুউদ্দিন কালু সমর্থীত উপজেলা মুক্তি সংসদ। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি করা হয় উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুউদ্দিন কালুকে। 
সম্প্রতি উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুউদ্দিন কালু বলেন, আমার বাবা শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন, এনিয়ে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেইসবুক নানা আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় কালুর পিতা হাজী আলী আকবর ছিলে শান্তি কমিটির সদস্য। 
এ শান্তি কমিটির সদস্যের ছেলে সামছুউদ্দিন কালুকে দিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে পবিত্র মুক্তি সদন ও স্মার্ট এন আইডি কার্ড বিতরণ করা হয়। যার পরিচালনা করেন চেয়ারম্যানের পিএস সাবেক মৌকরা ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ইসহাক মিয়া। এ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করার জন্য প্রতিটি মুক্তিযোদ্ধাদের কাছ থেকে ১ শত ৫০ টাকা করে চাঁদা নেয়ারও অভিযোগ রয়েছে ইসহাক মিয়া বিরুদ্ধে। 
নাম না প্রকাশ করা শর্তে একাধিক মুক্তিযোদ্ধা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমরা যুদ্ধ করেছি শান্তি কমিটির সদস্যের ছেলের হাত থেকে মুক্তি সদন নেয়ার জন্য। দেশটা শেষ হয়ে গেছে। কে দেখবে এসব বিষয়। আবার এ অনুষ্ঠানের চেয়ারম্যান পিএস ইসহাক মিয়া ১৫০ টাকা করে নিয়েছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার দৃষ্টি কামনা করছি।
এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রায়হান মেহেবুব, সহকারী কমিশনার ভূমি আশরাফুল হক ও মেয়র আব্দুল মালেক প্রমূখ।
অনুষ্ঠান শেষে পুরো উপজেলা সকল মুক্তিযোদ্ধাদের স্মার্ট সনদ ও স্মার্ট এন আইডি কার্ড দেন ও প্রয়াত সকল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য দোয়া করা হয়।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ