1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৩৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
চকরিয়ার সবুজবাগে ড্রেনের পানি চলাচল পথ দখলে নিয়ে রাস্তা নির্মাণ, জনদুর্ভোগের আশঙ্কা খাদের কিনারে যাচ্ছে দেশের অর্থনীতি,এমপি ব্যারিস্টার শামীম পাটোয়ারী কুড়িগ্রামে সংবাদ টিভির কেক কাটার মাধ্যমে পঞ্চম বর্ষে পদার্পণ উদযাপিত হলো বাংলাদেশ প্রিন্টিং মাষ্টার এসোসিয়েশন এর প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন মসজিদে নামাজ পড়াতে গিয়ে ইমামের সাইকেল চুরি রাংগাঝিরি মোঃ ইউনুছ চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত চৌদ্দগ্রামে ব্যাটমিন্টন খেলাকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাংয়ের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১ ছাতকে খেলাফত মজলিসের আলোচনা সভা ও দোওয়া মাহফিল রাজশাহী কারাগারে গোদাগাড়ীর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে নবাব ফয়জুন্নেছার ওয়াকফকৃত সম্পত্তি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন

নরসিংদীর রায়পুরায় থানার হাজতের টয়লেটে স্ত্রী হত্যা মামলার আসামীর আত্মহত্যা

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৯ নভেম্বর, ২০২২
  • ২৮ ০৫ বার পঠিত

এস আলম, নরসিংদী -ঃ- নরসিংদীর রায়পুরা থানা হেফাজতে সুজন মিয়া (৩৫) নামে স্ত্রী হত্যা মামলার এক আসামী আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি পুলিশের। বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে থানার হাজতখানার টয়লেট এর ভেতর থেকে তার লাশ উদ্ধার করে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায় পুলিশ।
নিহত সুজন মিয়া রায়পুরা উপজেলার মাহমুদপুর এলাকার মজিবর রহমানের ছেলে। স্ত্রী লাভলী বেগমকে ছুরিকাঘাতে হত্যা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করার পর দুইদিনের রিমান্ডে ছিলেন সুজন মিয়া।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আল আমিন জানান, পারিবারিক কলহের জেরে গত রোববার (৬ নভেম্বর) স্ত্রী লাভলী বেগমকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে স্বামী সুজন মিয়া। হত্যার পর সুজন ও তার পরিবারের সদস্যরা পালিয়ে যায়। এই হত্যা মামলায় সোমবার রাতে সুজন মিয়াকে ফরিদপুরের সদরপুর এলাকার একটি দরবার শরীফ থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। মঙ্গলবার ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত তার দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। পরে তাকে থানার হাজতখানায় রাখা হয়। সেখানে থানা হাজতের টয়লেটের ভেতরের ভেন্টিলেটরের রডের সাথে পড়নের শার্ট দিয়ে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করে আসামী সুজন। পরে তার লাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠায় পুলিশ। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। এই ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) অনির্বাণ চৌধুরীকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছে জেলা পুলিশ। এই কমিটি তিন কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেবে।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন করা ও রায়পুরা থানা পুলিশ কর্তৃক আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ