1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৪১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
খাদের কিনারে যাচ্ছে দেশের অর্থনীতি,এমপি ব্যারিস্টার শামীম পাটোয়ারী কুড়িগ্রামে সংবাদ টিভির কেক কাটার মাধ্যমে পঞ্চম বর্ষে পদার্পণ উদযাপিত হলো বাংলাদেশ প্রিন্টিং মাষ্টার এসোসিয়েশন এর প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন মসজিদে নামাজ পড়াতে গিয়ে ইমামের সাইকেল চুরি রাংগাঝিরি মোঃ ইউনুছ চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত চৌদ্দগ্রামে ব্যাটমিন্টন খেলাকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাংয়ের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১ ছাতকে খেলাফত মজলিসের আলোচনা সভা ও দোওয়া মাহফিল রাজশাহী কারাগারে গোদাগাড়ীর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে নবাব ফয়জুন্নেছার ওয়াকফকৃত সম্পত্তি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন রংপুর সিটি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী এ্যাড. হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়ার সঙ্গে জেলা আ’লীগের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

বর্তমান সরকার বুঝে গেছে, তাদের পায়ের নিচে মাটি নেই: ফখরুল

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২ নভেম্বর, ২০২২
  • ১৯ ০৫ বার পঠিত

মিরু হাসান বাপ্পী, বগুড়া সংবাদদাতা -ঃ- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বর্তমান সরকার বুঝে গেছে, তাদের পায়ের নিচে আর মাটি নেই। তারা বুঝে গেছে এই দেশের জনগণ আর তাদের সঙ্গে নেই। এই জন্য তারা আজকে ভিন্ন পথে যাওয়ার চেষ্টা করছে। তারা সংঘাত সৃষ্টি করতে চায়। সমাবেশ করতে দেবে না, বারবার হুমকি, এত হুমকি কারা দেয়? যারা ভেতরে দুর্বল তারাই হুমকি দেয়।’

বুধবার (২ নভেম্বর) দুপুরে বগুড়ার শহীদ টিটু মিলনায়তনে জেলা বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, প্রত্যেকটা সমাবেশের দুইদিন আগে তারা পরিবহন বন্ধ করে দিয়েছে। তারা অত্যাচার করেছে, আক্রমণ করেছে। কিন্তু তারা পেরেছে কি খুলনার সমাবেশকে বন্ধ করতে? রংপুরের সমাবেশ প্রমাণ করেছে সেখানে বিএনপি ছাড়া আর কোনো দল নেই। দুই দিন আগে, তিনদিন আগে চিড়া, মুড়ি, গুড় ও গামছা বেঁধে নেতাকর্মীরা সমাবেশে চলে এসেছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বর্তমান সরকারের এখন জনগণের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই। এরাই বাংলাদেশকে সত্যিকার অর্থে একটা ভাগাড়ে পরিণত করেছে। এখানে আর কোনো কিছু অবশিষ্ট নাই। যার জন্য তাদের মুখ থেকেই সব কথা বেরিয়ে আসছে। তারা বলছে, বিদ্যুৎ দিতে পারবো না। তাদের উপদেষ্টা বলছেন, আমাদের বিদ্যুৎ নেই, পয়সা নেই, জ্বালানি কিনবো কই থেকে।’ ফখরুল বলেন, ‘এই বিনা ভোটের সরকার দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিয়েছে। চুরি, দুর্নীতির কারণে এসব হয়েছে। রিজার্ভ খেয়ে ফেলেছে। টাকা পাচার করেছে। খাদ্য শস্য আমদানি কমে গেছে। আমদানি করার জন্য যে পরিমাণ ডলার দরকার সেই পরিমাণ ডলার নেই। রেমিট্যান্স পাঠানো কমে গেছে। এই সংকটের জন্য দায়ী আওয়ামী লীগ সরকার।’

বিএনপির জন্ম হয়েছে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করার জন্য উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘জিয়াউর রহমান ও খালেদা জিয়া দেশ জাতিকে রক্ষার জন্য নিজেদের সুখ বিসর্জন দিয়েছেন। আমাদের সেই ঋণ শোধ করতে হবে। আমাদের আজকে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে, যে সংগ্রাম শুরু হয়েছে সারা দেশের মানুষ আবার জেগে উঠছে- এই জাগরণকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। এই অনির্বাচিত সরকারকে পরাজিত করতে হবে।’

জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপি অধিকার আদায়ের সংগ্রাম করছে দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমরা অধিকার আদায়ের সংগ্রামে ৫ জন নেতাকর্মীকে হারিয়েছি। তার আগে ৯০০ জনের বেশি নেতাকর্মীকে গুম করা হয়েছে। মিথ্যা মামলা দিয়ে খালেদা জিয়াকে গৃহবন্দী করা হয়েছে। আমরা গণতন্ত্রের আন্দোলন করছি। এই লড়াই শেষ লড়াই। এই লড়াই ব্যক্তির বা দলের জন্য নয়। এই লড়াই জাতিকে রক্ষা করার জন্য।’

বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক একে এম সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে সম্মেলন উদ্বোধন করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন রাজশাহী বিভাগীয় বিএনপির সহ-সাংগাঠনিক সম্পাদক এএসই ওবায়দুর রহমান চন্দন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেজা জিয়ার উপদেষ্টা একেএম মাহবুবর রহমান, হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, বগুড়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ, বগুড়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য মোশাররফ হোসেন প্রমুখ। সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সংযুক্ত ছিলেন। তিনি প্রধান অতিথির পর সম্মেলনে বক্তব্যও দিয়েছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ