1. crimeletter24@gmail.com : crimelet_crimelet :
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:১৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
চকরিয়ার সবুজবাগে ড্রেনের পানি চলাচল পথ দখলে নিয়ে রাস্তা নির্মাণ, জনদুর্ভোগের আশঙ্কা খাদের কিনারে যাচ্ছে দেশের অর্থনীতি,এমপি ব্যারিস্টার শামীম পাটোয়ারী কুড়িগ্রামে সংবাদ টিভির কেক কাটার মাধ্যমে পঞ্চম বর্ষে পদার্পণ উদযাপিত হলো বাংলাদেশ প্রিন্টিং মাষ্টার এসোসিয়েশন এর প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন মসজিদে নামাজ পড়াতে গিয়ে ইমামের সাইকেল চুরি রাংগাঝিরি মোঃ ইউনুছ চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত চৌদ্দগ্রামে ব্যাটমিন্টন খেলাকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাংয়ের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১ ছাতকে খেলাফত মজলিসের আলোচনা সভা ও দোওয়া মাহফিল রাজশাহী কারাগারে গোদাগাড়ীর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে নবাব ফয়জুন্নেছার ওয়াকফকৃত সম্পত্তি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন

তানোরে ফিল্মি-স্টাইলে পুকুরের মাছ লুট

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২ নভেম্বর, ২০২২
  • ১৮ ০৫ বার পঠিত

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি -ঃ- রাজশাহীর তানোরে ফিল্মি-স্টাইলে
পুকুরের মাছ লুটের অভিযোগ উঠেছে। গত ১ নভেম্বর মঙ্গলবার মুন্ডুমালা পৌর এলাকার চিনাশো মৌজার বুড়াবুড়িতলা পুকুরে মাছ লুটের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় একইদিন চিনাশো মৎস্যচাষী সমবায় সমিতির সভাপতি ইমরান বাদি হয়ে সাইদ সাজু ও আশরাফুল ইসলাম রঞ্জুকে আসামি করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এবং অনুলিপি ভূমি মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সাংসদ ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে। কিন্ত্ত রহস্যজনক কারণে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছেন না বলে অভিযোগ ভক্তভোগীদের। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা ও বিস্ফোরণমূখ পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

অভিযোগে বলা হয়েছে, প্রায় তিন বছর আগে উপজেলা ভূমি অফিস থেকে চিনাশো মৎস্যচাষী সমবায় সমিতির নামে চিনাশো মৌজার, আরএস ৭৩৪ দাগে ৪৯ শতাংশ খাস পুকুর ৬৫ হাজার টাকায় বৈধভাবে লীজ নিয়েছেন। গত বৈশাখ মাসে লীজের মেয়াদ শেষ হয়। মেয়াদ শেষ হওয়ার পর সমিতির নামে পুনরায় ভূমি অফিস থেকে লীজ নেওয়ার জন্য গেলে কর্তৃপক্ষ তহসীল অফিসের মাধ্যমে লীজ নেওয়ার পরামর্শ দেন। সমিতির সদস্য মাইনুল ইসলাম জানান, তারা তহসীল অফিসে গিয়ে তহসীলদার রবিউল বলেন, তিন বছরের মেয়াদে যত টাকা দিয়ে পুকুর লীজ নিয়েছেন সেই পরিমান টাকা দিলে এক বছরের জন্য লীজ দেওয়া হবে। এমন কথা শোনার পর আমরা বলি আপনি প্রকাশ্যে নিলাম দেন, আমরা যদি পারি নিব, না পারলে না নিব। কিন্তু তহসীলদার গোপণে সাইদ সাজুকে নাকি লীজ দিয়েছেন। কত টাকায় সেটাও আমাদেরকে বলেন নি। এরই মধ্যে সাইদ ও রঞ্জু গত মঙ্গলবার মাছ লুট করে নিয়েছে আমি তাদের কাছে জানতে চাইলে তারা উল্টো আমার উপর চড়া হয়। কাগজ দেখতে চাইলেও তারা দেখান নি। ঘটনাটি উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানকে অবহিত করা হয়েছিল, তারা বসে সমাধান করতে চেয়েছিল। কিন্তু তারা কোন কথায় শোনেন নি। পুকুরে বড় সাইজের বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় লাখ টাকার মাছ ছিল। এবিষয়ে সমিতির সভাপতি ইমরান জানান, তহসীলদার রবিউল প্রকাশ্যে নিলাম না দিয়ে গোপনে কেন দিলেন। আমাদেরকে মাছ মারতে না দিয়ে উল্টো তাদেরকে মাছ মারার হুকুম দিয়েছেন। না হলে কিভাবে মাছ মারবে। এদিকে অভিযোগের ভিত্তিতে, গত মঙ্গলবার দুপুরে তহসীল অফিসে গিয়ে রবিউলের কাছে জানতে চাওয়া সাইদ সাজুকে কিভাবে নিলাম দিলেন ও কত টাকায় তিনি একটি কাগজ দেখান সেখানে লিখা আছে, তা হুবহু তুলে ধরা হল,
গণপ্রজাতন্ত্রী সরকার বাংলাদেশ
মুন্ডুমালা ভূমি অফিস, তানোর রাজশাহী। তারিখ ২০/০৯/২০২২ ইং
৩১.৪৩.৮১৯৪.০০০.০০৬.২০.২২-১৪৫৭(৩) নম্বর স্বারকে, বাংলা ১৪২৯ সনের অস্থায়ী ইজারাদান প্রদান।
সুত্র: উপজেলা খাস আদায় সংক্রান্ত জলমহল ব্যবস্থাপনা গত ৫/৬/২০২২ খ্রি: তারিখের কার্যবিবরনী। উর্পযুক্ত বিষয় ও সুত্রোক্ত স্বারকের পরিপ্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে, বাংলা ১৪২৯ সনের ৩০ চৈত্র পর্যন্ত খাস পুকুর খাস আদায়ের নিমিত্ত তানোর উপজেলা খাস আদায় জলমহল ব্যবস্থাপনা কমিটির গত ফাকা খ্রী: তারিখে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। উক্ত সিদ্ধান্ত মোতাবেক নিম্ম তফসীলভুক্ত জলমহলের ১৪২৯ সনের ৩০ শে চৈত্র পর্যন্ত খাস আদায় করে ১(এক) বছরের জন্য অস্থায়ী লীজ প্রদান করা হল। নিচে তপসীল মৌজা, চিনাশো, জেএল নং ৮১, খতিয়ান নং ০১, দাগ নং ৭৩৪ পরিমান একর ০.৫৭ ও ৮৭৭ পরিমান একর ০.৬৪ শ্রেণী পুকুর, বর্নিত সময়কাল বাংলা ১৪২৯ সনের ৩০ শে চৈত্র। তার নিচে লীজ পাওয়া ব্যক্তি সাইদ সাজু, পিতা মৃত দেলজান, সাং তানোর, থানা তানোর জেলা রাজশাহী। মোবাইল নম্বর ০১৭১২-৬৭৮৬০১ তার নিচে, অনুলিপি সদয় জ্ঞাতার্থে/ কার্যার্থে
উপজেলা নির্বাহী অফিসার, তানোর, রাজশাহী সহকারী কমিশনার ভূমি, তানোর, রাজশাহী
অফিস কপি। অন্য সাইডে সহকারী কমিশনার ভূমি তানোর, রাজশাহী। কত টাকায় লীজ এবং সহকারি কমিশনার ভূমির স্বাক্ষর না থাকা সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে উত্তরে বলেন টাকা চালান দেওয়া হয়েছে, পরিমান স্বরন নাই। তবে মাছ তুলে নিতে সমিতিকে নোটিশ না দিলেও মেয়াদ অনেক আগে শেষ হয়েছে, এজন্য মাছ মারতে পারে, কিন্তু সেটা সঠিক কাজ করেনি তারা এটা দন্ডনীয় অপরাধ, তারা এর আগেও এক ব্যক্তির মালিকানা পুকুরেও লাল নিশানা সাটিয়েছিলেন।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পংকজ চন্দ্র দেবনাথকে পুকুর লীজের কাগজ দেখানো হলে তিনি বলেন এটা লীজের কাগজ না, এভাবে লীজের কাগজ হয় না, অভিযোগ হাতে পেলেই তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো সংবাদ